জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ড কর্তৃক অনুমোদিত দেশের সবচেয়ে বেশি পঠিত মাহবুবুর রহমান প্রণীত একাদশ ও দ্বাদশ শ্রেণির ‘তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি’ বই

ফেসবুক গ্রুপের মেম্বার হোন, পুরস্কার জিতুন!!!

রিসোর্স মেনুর অধ্যায় ভিত্তিক টপিকস সাব মেনুর অধীনে রয়েছে অসংখ্য ভিডিও লেকচার

প্রযুক্তি আলো-র প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক ও কম্পিউটার বিষয়ক লেখক মাহবুবুর রহমান ছাত্রীদেরকে প্রোগ্রামিং শিক্ষা কার্যক্রম পরিদর্শন করছেন

প্রযুক্তি আলো-র একজন সদস্য ছাত্রীদের প্রোগ্রামিং শেখাচ্ছেন

কলেজ প্রাঙ্গনে ”প্রযুক্তি আলো” টিম

সিরাজগঞ্জ জেলার বিভিন্ন কলেজের আইসিটি শিক্ষকদের সেমিনারে প্রধান আলোচক হিসাবে বক্তব্য রাখছেন লেখক মাহবুবুর রহমান

চাঁদপুর জেলার ৬৯টি কলেজের আইসিটি শিক্ষকদের সেমিনারে প্রধান আলোচক হিসাবে বক্তব্য রাখছেন লেখক মাহবুবুর রহমান

নাটোর জেলার বিভিন্ন কলেজের আইসিটি শিক্ষকদের অনুষ্ঠানে বক্তব্যরত লেখক মাহবুবুর রহমান

 

প্রযুক্তি আলো

বর্তমানে আমাদের দেশে একাদশ-দ্বাদশ শ্রেণীতে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিষয়টি আবশ্যিক হওয়াতে এ বিষয়টি নিয়ে অনেকেই ব্যাপক আগ্রহের পাশাপাশি নতুন অনেক বিষয় যেমন, এইচটিএমএল এবং সি প্রোগ্রামিং নিয়ে উৎদ্বিগ্ন হতে দেখা গেছে। অনেক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ল্যাবে পর্যাপ্ত কমপিউটার না থাকায় শিক্ষার্থীরা হাতে কলেমে শিখতে পারছেনা। সরাসরি হাতেকলমে শিখতে পারলে ভালোভাবে বিষয়টি বুঝার পাশাপাশি ভবিষ্যতে ওয়েব ডেভলপমেন্ট এবং প্রোগ্রামিং এর প্রতি আগ্রহী হতো। প্রযুক্তি ছড়িয়ে যাক সবখানে এ শ্লোগান নিয়ে কার্যক্র শুরু করেছে প্রযুক্তিআলো। বিভিন্ন পাবলিক এবং প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়ের শেষ বর্ষের তরুণ শিক্ষার্থীরা সমাজের প্রতি দ্বায়বন্ধতা হিসাবে বলেন্টারি মানসিকতা নিয়ে প্রযুক্তি আলোর সদস্য হিসাবে দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলের শিক্ষার্থীদেরকে হাতেকলেমে শিক্ষা দেয়ার উদ্যোগের সাথে একাত্মতা প্রকাশ করেছে। তাদেরকে নিয়ে একটি টীম গঠন করা হয়েছে। এ টীমের সদস্যরা বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ল্যাপটপ নিয়ে সরাসরি শিক্ষার্থীদের মাঝে প্রযুক্তি শিক্ষার আলো ছড়িয়ে দিবে। এ টীমের সেবা পেতে আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন। আমাদের সুবিধামতো সময়ে আপনাদের মাঝে পৌঁছে যাবে আমাদের প্রযুক্তি আলোর সদস্যরা।

Untitled
Narshindi3
প্রযুক্তি আলো এর সাম্প্রতিক কার্যক্রম

গত ২৯ জানুয়ারি ঢাকা থেকে ৮২ কিলোমিটার দুূরে নরসিংদী জেলার রায়পুরা উপজেলা থেকে ৫ কিলোমিটার দূরে প্রত্যন্ত অঞ্চলের বাহেরচর-বড় কান্দা গ্রামে অবস্থিত উপজেলার ২৪টি ইউনিয়নের একমাত্র মহিলা কলেজ রহিমা হক চেতনা বিকাশ কলেজে শীতের সকালে উপস্থিত হয় প্রযুক্তি আলোর সদস্যরা। কলেজের গেট থেকে ক্যাম্পাসের গেট পর্যন্ত দুই সারিতে লাইন ধরে প্রযুক্তি আলো টীমের সদস্যদেরকে সাদর অভ্যর্থনা জানায় উক্ত কলেজের শিক্ষার্থীরা। এশিয়ান ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশ এর কমপিউটার সায়েন্স বিভাগের পাঁচজন শিক্ষক জনাব মোঃ আহসান আরিফ, মোঃ মোবারক হোসেন, রেবেকা সুলতানা, মোঃ আকতারুজ্জামান, মোঃ সোলায়মান মিয়া এবং ফাইনাল সেমিস্টারের বারো জন শিক্ষার্থী শাহনাজ আকতার, বিবি মরিয়ম মুন্নি, তাসলিমা আকতার, মাহমুদা সুলতানা, রোকেয়া আকতার, শারমিন আকতার, ফাইজুল হক নয়ন, বজলুর রহমান সজল, এসএম আলম, কায়সারুল আলম, ইমরান হোসেন এবং প্রযুক্তি আলোর কো-অর্ডিনেটর প্রকৌশলী মেহেদী হাসান এবং সহকারী রায়হান সহ মোট ২৫ জনের টীম বিশটি ল্যাপটপসহ হাতে-কলমে সরাসরি প্রশিক্ষণ দেয় শতাধিক ছাত্রীদেরকে।
কমপিউটার সায়েন্স বিভাগের প্রধান, এসোসিয়েট প্রফেসর আকরুজ্জামান স্যারকে হেড করে বাকি চারজন শিক্ষককে টীম লিডার করে বারজন শিক্ষার্থীকে প্রশিক্ষক করে সাজানো হয় বারটি টীম। মোট শিক্ষার্থীদেরকে বারটি টীমে ভাগ করে প্রশিক্ষণ কার্যক্রম শুরু হয়। কলেজের দ্বিতীয় তালার বড় কাসরুমে প্রথমে কলেজের সব শিক্ষার্থীরা উপস্থিত হয়। এখানে এ প্রশিক্ষণ কর্মশালাটি উদ্বোধন করেন এশিয়ান ইউনিভার্সিটির সন্মানিত ভিসি ড. আবুল হাসান মোঃ সাদেক। প্রশিক্ষণ কর্মশালায় যে যে বিষয় শিখানো হবে তা সংক্ষেপে অত্যান্ত সহজভাবে শিক্ষার্থীদের সামনে তোলে ধরেন প্রযুক্তি আলোর চিফ জনপ্রিয় আইটি লেখক মাহবুবুর রহমান। এরপর শুরু হয় সরাসরি প্রশিক্ষণ কার্যক্রম। এইচটিএমএল এর ট্যাগ ব্যবহার করে ছোট ওয়েবপেজ তৈরি এবং সি প্রোগ্রামিং এ ছোট প্রোগ্রাম তৈরি করে দেখানো হয় শিক্ষার্থীদেরকে। অনেকে জীবনের প্রথম ল্যাপটপ স্পর্শ করে অভিভূত হয়। অত্যান্ত মনোযোগ সহকারে তারা প্রশিক্ষকের কথা শুনে এবং বিভিন্ন প্রশ্ন করে অনেক কিছু জেনে নেয়। প্রত্যেক টীম লিডার তার টীমের সদস্যদের প্রশিক্ষণ কার্যক্রয় তদারকী করেন। সুদূর ঢাকা থেকে আগত আগামী দিনের এক ঝাঁক কমপিউটার প্রকৌশলী ভাইয়া আর আপুদেরকে পেয়ে শিক্ষার্থীরা অত্যান্ত কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে। শুধু তাদেরকে প্রশিক্ষণ দেয়ার উদ্দেশ্যে আগতদের মাঝে এক আনন্দঘন সময় কাটায় শিক্ষার্থীরা। কলেজ কর্তৃপক্ষ সব্জি, মাছ আর দেশি মুরগী দিয়ে আপ্যায়িত করে প্রযুক্তি আলোর সদস্যদের। প্রযুক্তির আলো ছড়িয়ে দিতে এ ধরণের সেবামূলক কার্যক্রমে অংশগ্রহণ করতে পেরে গর্বিত হয় প্রযুক্তি আলোর সদস্যরা।

22

আরো ছবি >>>