ইন্টারনেট অব থিংস (আইওটি) নিয়ে মাহবুবুর রহমানের নতুন বই

জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ড কর্তৃক অনুমোদিত দেশের সবচেয়ে বেশি পঠিত মাহবুবুর রহমান প্রণীত একাদশ ও দ্বাদশ শ্রেণির ‘তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি’ বই

রিসোর্স মেনুর অধ্যায় ভিত্তিক টপিকস সাব মেনুর অধীনে রয়েছে অসংখ্য ভিডিও লেকচার

প্রযুক্তি আলো-র প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক ও কম্পিউটার বিষয়ক লেখক মাহবুবুর রহমান ছাত্রীদেরকে প্রোগ্রামিং শিক্ষা কার্যক্রম পরিদর্শন করছেন

প্রযুক্তি আলো-র একজন সদস্য ছাত্রীদের প্রোগ্রামিং শেখাচ্ছেন

কলেজ প্রাঙ্গনে ”প্রযুক্তি আলো” টিম

সিরাজগঞ্জ জেলার বিভিন্ন কলেজের আইসিটি শিক্ষকদের সেমিনারে প্রধান আলোচক হিসাবে বক্তব্য রাখছেন লেখক মাহবুবুর রহমান

চাঁদপুর জেলার ৬৯টি কলেজের আইসিটি শিক্ষকদের সেমিনারে প্রধান আলোচক হিসাবে বক্তব্য রাখছেন লেখক মাহবুবুর রহমান

নাটোর জেলার বিভিন্ন কলেজের আইসিটি শিক্ষকদের অনুষ্ঠানে বক্তব্যরত লেখক মাহবুবুর রহমান

 

আজকের আইটি

নতুন নতুন টিপস পেতে আমাদের সাথেই থাকুন

হার্ডডিস্ক ভালো রাখার কিছু টিপস !!

  • প্রতি পার্টিশনে অন্তত ২০% ফাকা জায়গা রাখুন।
  • নিয়মিত ডিফ্র্যাগ করুন।
  • সপ্তাহে একবার বুট টাইম ডিফ্র্যাগ করুন। অর্থাৎ পেজফাইল, হিবারফিল ইত্যাদি সহ সিস্টেম ফাইল ডিফ্র্যাগ করুন।
  • হার্ডডিস্ক এর তাপমাত্রা মনিটর করুন। দরকার হলে ক্রিটিকাল তাপমাত্রা সেট করে দিন যেন বেশি গরম হয়ে গেলে আপনি নোটিফিকেশান পান।

  • হার্ডডিস্ককে ধুলাবালি থেকে দূরে রাখুন। মনে রাখবেন ছোট্ট একটা কণা যা আপনার মাথার চুলের দশভাগের একভাগ সেটা আপনার ডিস্ক হেডকে নষ্ট করে দিতে পারে।
    ইউপিএস ব্যবহার করুন।
  • ব্যাকআপের জন্য রেইড বানিয়ে ফেলুন।
  • ছয়মাস বা একবছর পর পর সুযোগ পেলে হার্ডডিস্ক এর সকল ডাটা ব্যাকআপ নিয়ে ডিস্ক লো লেভেল ফরম্যাট করে নিন। এতে ব্যাড সেক্টর সহ কোন সমস্যা থাকলে তা দূর হয়ে যাবে।
  • উইন্ডোজ এর ইনডেক্সিং বন্ধ করে দিন। ইনডেক্সিং এর মাধ্যমে উইন্ডোজ হার্ডডিস্ক এর সকল ফাইল এর লিস্ট তৈরি করে এবং সার্চ করলে দ্রুত ফলাফল দেখায়। কিন্তু ইনডেক্স এর কারণে অযথাই ডিস্ক ঘুরতে থাকে এবং শক্তি বা ব্যাটারি ক্ষয় হয়।

পেন ড্রাইভে শর্টকাট ভাইরাস?
অনেক সময় কম্পিউটারে পেনড্রাইভ যুক্ত করার পর ফাইল এবং ফোল্ডারগুলো দেখা যায় না। অথচ ফাইলগুলো যে পেনড্রাইভে আছে তা আপনি জানেন। এটা মূলত ‘শর্টকাট ভাইরাস’ নামে পরিচিত একধরনের ভাইরাসের জন্য হয়ে থাকে। কোনো অ্যান্টিভাইরাস সফটওয়্যার ব্যবহার না করেই এই শর্টকাট ভাইরাস দূর করা সম্ভব। হারিয়ে যাওয়া ফাইল এবং ফোল্ডারগুলোও ফিরে পাওয়া যায় সহজেই।

লুকানো ফাইলগুলো দেখতে

প্রথমে স্টার্ট মেনু থেকে কন্ট্রোল প্যানেলে যান। উইন্ডোজ ৮ এবং পরের সংস্করণগুলোতে কন্ট্রোল প্যানেল পেতে ডেস্কটপের নিচের বাম দিকে ডান ক্লিক করে Control Panel নির্বাচন করুন।

Folder Options চালু করে View ট্যাব নির্বাচন করুন।

Hidden files and folders-এর নিচে Show hidden files, folders and drives নির্বাচন করুন। তার ঠিক নিচেই Hide empty drives in the Computer folder এবং Hide protected operating system files চেক বক্স দুটি আনচেক করুন।

সবশেষে Apply করে OK করুন। পেনড্রাইভের যে ফোল্ডারগুলো হারিয়ে গিয়েছিল, সেগুলো দেখতে পাবেন।

ফাইল এবং ফোল্ডার দেখাচ্ছে বটে তবে কথা হলো কীভাবে ভাইরাসমুক্ত করবেন। ভাইরাস সরাতে—

    • স্টার্ট মেনুতে কিংবা Run থেকে cmd লিখে কমান্ড প্রম্পট চালু করুন।
  • কমান্ড প্রম্পটে ‘attrib-h-s-r-a/s/d X:*.*’ লিখে এন্টার করুন (X-এর বদলে আপনার পেনড্রাইভের ড্রাইভ লেটার উল্লেখ করতে হবে)।

আপনার পেনড্রাইভের ফাইল এবং ফোল্ডারগুলোর সঙ্গে শর্টকাট ফোল্ডারেও দেখাবে। এখান থেকে শর্টকাট ফোল্ডার মুছে ফেলুন। ব্যস, হয়ে গেল।
লেখক: সোহেল রানা

অনলাইনে যে ভাবে পাসপোর্ট করবেন
কাগজে ছাপানো ফরম পূরণ করে পাসপোর্ট করার পাশাপাশি অনলাইনে পাসপোর্ট ফরম পূরণ করার ব্যবস্থা আছে। অনলাইনে পাসপোর্ট করতে আপনাকে যা করতে হবে-

পাসপোর্ট ফরম পূরণ
প্রথম ধাপ

    • অনলাইনে পাসপোর্টের ফরম পূরণ করার জন্য প্রথমে যেতে হবে www.dip.gov.bd এই ঠিকানায়।
    • হোম পেইজের ডান পাশে Service বক্সে Apply online for mrp এই অংশে ক্লিক করার পর পাসপোর্ট-সংক্রান্ত প্রয়োজনীয় দিকনির্দেশনা আসবে। Continue to online enrolment ট্যাবে ক্লিক করলে অনলাইন অ্যাপ্লিকেশন ফরমটি আসবে। এই ফরমে যেসব তথ্য চাওয়া হয়েছে সেসব তথ্য দিতে হবে।
    • তবে ফরমের ঠিক ওপরের অংশ Delivery Type-এর নিচে Supporting Doc**ent নামে যে আলাদা একটি বক্স রয়েছে। সাধারণ নাগরিক সেটি পূরণ করবে না। সরকারি কর্মকর্তা, আধাসরকারি, স্বায়ত্তশাসিত ও রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থার স্থায়ী কর্মকর্তা/কর্মচারী, অবসরপ্রাপ্ত সরকারি চাকরিজীবীদের এটি পূরণ করতে হয়।
    • Passport Type অংশে সাধারণ নাগরিকদের জন্য ordinary সিলেক্ট করতে হবে।
  • Delivery Type অংশে ৩০ দিনের জন্য হলে Regular এবং ১৫ দিনের জন্য হলে Express সিলেক্ট করতে হবে।

দ্বিতীয় ধাপ

    • একই ঠিকানায় আর একটি নতুন ফরম আসবে। এ ফরমটি পূরণ করতে হলে আগে থেকেই নির্ধারিত ব্যাংকে পাসপোর্টের জন্য ফি হিসাবে টাকা জমা দিয়ে রসিদ সংগ্রহ করতে হবে। সেই রশিদ নম্বর দিয়ে এ ফরম পূরণ করতে হয়।
    • আবেদনপত্র সঠিকভাবে পূরণ করে প্রিন্ট নিয়ে সংশ্লিষ্ট পাসপোর্ট অফিসে জমা দিতে হবে।
    • আবেদনপত্রটি ভেরিফিকেশন করে দায়িত্বরত কর্মকর্তা আবেদনপত্র যাচাই করে সিলসহ স্বাক্ষর করবেন।
    • পাসপোর্ট অফিসেই খোলা আছে বেশ কয়েকটি বুথ। এসব বুথেই জমা দিতে হবে।
    • আবেদনপত্রটি জমা দেওয়ার সময় পাসপোর্ট অফিসের দায়িত্বরত ব্যক্তি আপনার তথ্যগুলো কম্পিউটারে এন্ট্রি করে রাখবেন।
    • এরপর তিনি আপনাকে একটি টোকেন দেবেন।
    • টোকেনসহ আবেদনপত্রটি নিয়ে ছবি তোলার জন্য নির্ধারিত কর্মকর্তার কাছে যেতে হবে।
    • জাতীয় পরিচয়পত্রের জন্য যেভাবে ছবি তোলা হয়েছিল, এখানেও একইভাবে নির্দিষ্ট মাপের ছবি তোলা হবে।
    • ইলেকট্রনিক মেশিনে দুই হাতের আঙুলের ছাপ দিতে হবে।
    • এরপর নেওয়া হবে ইলেকট্রনিক স্বাক্ষর।
    • এই প্রক্রিয়া শেষে কর্তৃপক্ষ আবেদনপত্রটি রেখে দিয়ে পাসপোর্ট সংগ্রহের জন্য আপনাকে একটি আলাদা ডকুমেন্ট দেবে। পাসপোর্ট সংগ্রহ করার তারিখও জানিয়ে দেবেন।
    • আবেদন ফরম জমা দেওয়ার সময় আবেদনকারীকে অবশ্যই উপস্থিত থাকতে হবে। সংগ্রহ করার সময় নিজে না থাকলেও চলবে।
  • সাদা কাপড় পরে ছবি তোলা যাবে না।

অনলাইনে পাসপোর্ট চেকিং
নির্ধারিত ডেলিভারি তারিখে পাসপোর্ট ডেলিভারি নিতে পারবেন কি না তা অনলাইনে জানতে পারবেন।
লেখক: অঞ্জন দেব

ফিরিয়ে নিন ভুল করে পাঠানো ই-মেইল
Send বাটনে চাপ দিতেই মনে পড়ে গেল ই-মেইলে যে ফাইলটি যুক্ত (অ্যাটাচড) করার কথা তা আদতে করা হয়নি। কিংবা বন্ধুর জন্য লেখা ই-মেইলে ভুল করে বসের ঠিকানা জুড়ে দিয়েছেন। ই-মেইল তো অনেকটা মুখের কথার মতোই—একবার বেরিয়ে গেল তো ফেরত নেওয়ার আর সুযোগ নেই। তবে ই-মেইল সেবাদাতাটি যদি জিমেইল হয়, তাহলে পাঠানো বার্তাটি ফিরিয়ে নেওয়ার জন্য অন্তত কিছুটা হলেও সময় পাবেন। ‘Undo Send’ নামের সুবিধার মাধ্যমে ভুল করে পাঠানো ই-মেইল তাৎক্ষণিকভাবে মুছে ফেলা বা থামিয়ে দেওয়ার সুযোগ পাওয়া যায়।

জিমেইল ল্যাবসে বছর ছয়েক আগে সুবিধাটি যোগ করা হলেও তা ছিল পরীক্ষামূলক। সে সময় এই সুবিধা নিজের জন্য যোগ করে থাকলে অবশ্য নতুন করে কিছু আর করতে হবে না। যদি নতুন করে যোগ করতে চান, তবে নিচের ধাপগুলো অনুসরণ করুন।

    • জিমেইলে ঢুকুন (লগ-ইন)।
    • পর্দার ওপরের দিকে ডান কোনায় গিয়ার আইকনে ক্লিক করুন।
    • Settings নির্বাচন করুন।
    • General ট্যাবের নিচে Undo Send অংশে যান।
    • Enable Undo Send-এ ক্লিক করুন।
    • পাশের তালিকা থেকে ৫, ১০, ২০ বা ৩০ সেকেন্ড সময় নির্বাচন করে দিন।
    • পর্দার নিচে Save Changes বোতামে ক্লিক করে নতুন সেটিংস সংরক্ষণ করুন।
  • এরপর প্রতিবার কোনো ই-মেইল পাঠানোর পরে ‘Your message has been sent’ লেখার পাশে Undo বোতাম দেখতে পাবেন।

লেখক: সোহেল রানা – পিসি ম্যাগ অবলম্বনে

ল্যাপটপ ঠান্ডা করার অভিনব উপায়!
বেশিক্ষণ ধরে চালানোর ফলে আপনার ল্যাপটপ কি বেশি গরম হয়ে যায়? তামার কয়েন ব্যবহার করে ল্যাপটপের অতিরিক্ত গরম হওয়া ঠেকানো যায়। ল্যাপটপ ঠান্ডা রাখার অভিনব এ পথ বের করে টুইটারে তা পোস্ট করেন জাপানের অ্যাকিনোরি সুজুকি নামে এক ব্যক্তি। টুইটারে তাঁর পোস্ট করা ছবিতে দেখা যায়, ১০ ইয়েনের (জাপানি মুদ্রা) কয়েন (তামার কয়েন) স্তূপ করে তিনি ম্যাকবুক প্রোর স্ক্রিনের সামনে রেখেছেন। তাঁর দাবি, তামা ল্যাপটপ থেকে অতিরিক্ত তাপ শুষে নিতে পারে।

সহজ এ পদ্ধতিতে কম্পিউটার অতিরিক্ত গরম হওয়া ঠেকানো যাবে বলে দাবি করেছেন তিনি।
বিশেষজ্ঞরা বলেন, কম্পিউটারে ব্যবহৃত অ্যালুমিনিয়ামের চেয়ে তামা অধিক তাপ পরিবাহী। থার্মোডাইনামিকসের সূত্র অনুযায়ী, ল্যাপটপে যে প্লাস্টিক বা অ্যালুমিনিয়াম থাকে, তার চেয়ে অধিক তাপ পরিবাহী ও শোষক হিসেবে কাজ করে তামা।
অবশ্য তাঁরা সতর্ক করে বলেন, পদ্ধতিটি ঠিকমতো পরীক্ষিত নয় বলে সবার ক্ষেত্রে সমান কাজ করবে, তার নিশ্চয়তা নেই। তবে কয়েকজন টুইটার ব্যবহারকারী এ পদ্ধতি ব্যবহার করে সফল হয়েছেন।

ল্যাপটপ ঠান্ডা রাখতে করণীয়ঃ
১. ভেতরের ফ্যান ঠিকমতো কাজ করছে কি না, তা পরীক্ষা করুন। অনলাইনে পাওয়া যায়, এমন ফ্যান পরীক্ষার সফটওয়্যার পাবেন।
২. ল্যাপটপের যেখান দিয়ে বাতাস বের হয়, সেখানে কোনো ময়লা জমেছে কি না, তা পরীক্ষা করুন। কাপড় বা ব্রাশ দিয়ে ময়লা পরিষ্কার করে ফেলুন।
৩. ল্যাপটপের জন্য একটি স্ট্যান্ড কিনুন। এতে ল্যাপটপ কম গরম হবে।
৪. ল্যাপটপে অপ্রয়োজনীয় প্রোগ্রাম বেশিক্ষণ চালু রাখবেন না।
৫. বিছানার ওপর দীর্ঘ সময় ল্যাপটপ ব্যবহার করবেন না। শীতল পরিবেশে ব্যবহার করুন।
৬. বায়োস সেটিংস পরীক্ষা করে সেখান থেকে টেম্পারেচার সেটিংস সুবিধামতো পরিবর্তন করুন।
লেখক: সোহেল রানা

ইউএসবি ড্রাইভকে রাখুন ফোল্ডার হিসাবে
অনেক সময় অন্যদের ইউএসবি ড্রাইভ ব্যবহার থেকে বিরত রাখতে বা শেয়ার করার জন্য বা অন্য প্রয়োজনে লুকিয়ে রাখতে পারেন। আর সাথে ইউএসবি ড্রাইভকে ফোল্ডার হিসাবে ব্যবহার করতে পারেন। আপনি যদি ইউএসবি ড্রাইভকে ডি ড্রাইভে [D:] রাখতে চান তাহলে ডি ড্রাইভে USB নামে একটি ফোল্ডার তৈরী করুন। এজন্য ডি ড্রাইভ অবশ্যই এসটিএফএস (NTFS) হতে হবে। এবার ইউএসবি ড্রাইভ কম্পিউটারে যুক্ত করুন এবং রানে (Ctrl+R চেপে) গিয়ে diskmgmt.msc লিখে এন্টার করুন তাহলে ডিস্ক ম্যানেজমেন্ট খুলবে। এখানে ইউএসবিসহ সকল ড্রাইভ দেখা যাবে।

ধরি এখানে ইউএসবি ড্রাইভ হচ্ছে [H:] । এখন এইচ ড্রাইভটিতে মাউসের ডান বাটন ক্লিক করে Change Drive Letter and Paths এ ক্লিক করুন তাহলে Change Drive Letter and Paths for H: নামে ডায়ালগ বক্স আসবে। এবার Add বাটনে ক্লিক করে Mount into the following empty NTFS folder এর Browse বাটনে ক্লিক করে ডি ড্রাইভের ইউএসবি ফোল্ডার (D:\USB) দেখিয়ে দিন এবং Ok করে আবার Ok করুন। এরপরে মূল ড্রাইভটি মুছে ফেলতে H: নির্বাচন করে Remove বাটনে ক্লিক করে মুছে ফেলুন। এখন থেকে ইউএসবি ড্রাইভ কম্পিউটারে যুক্ত করলে কোন ইউএসবি ড্রাইভ দেখাবে না। আপনি D:\USB থেকে ইউএসবি ড্রাইভের সকল তথ্য পড়তে, লিখতে বা মুছতে পারবেন।

তথ্যসূত্র: http://tunerpage.com/

ঘরেই বানাও মোবাইল স্পিকার
মোবাইলে গান শোনার জন্য যে স্পিকার ব্যবহৃত হয়, সে স্পিকারের সাউন্ডে যদি তুমি সন্তুষ্ট না হও তাহলে তোমার দরকার হবে আলাদা স্পিকার। আবার পয়সা খরচ করে আলাদা স্পিকার কেনা! স্পিকার না কিনেও বাসার অপ্রয়োজনীয় বস্তু দিয়েও সহজে বানিয়ে নিতে পারো মোবাইল স্পিকার। এতে খরচ হবে না এক টাকাও। লাগবে না কোন বিদ্যুৎ বা ইউএসবি সংযোগ।

প্রয়োজনীয় উপকরণ
১. টয়লেট টিস্যুর রোল ৩টা
২. প্লাস্টিক কোকের গ্লাস
৩. কেচি

প্রস্তুতপ্রণালী
প্রথমে টয়লেট টিস্যু ব্যবহারের পর যে রোল থাকে সেই ধরনের তিনটি রোলকে জোড়া লাগাও। বড় সাইজের টিস্যু হলে একটি রোলই যথেষ্ট। এবার প্লাস্টিকের গ্লাস গুলোকে টিস্যু রোলের সাইজ অনুযায়ী কেটে নাও। টিস্যু রোলের মাঝখানে তোমার মোবাইলের সাইজ অনুসারে কেটে নাও। এমনভাবে কাটতে হবে যেন মোবাইলটি রোলের ভেতরে প্রবেশ করে।

রোলের দুই প্রান্তে গ্লাস গুলো প্রবেশ করাও। আর মাঝখানের কাটা অংশে মোবাইলটি প্রবেশ করাও। এবার দেখ তোমার মোবাইলের শব্দ বেড়ে গেছে দ্বিগুণ।

প্লাস্টিক গ্লাসের স্থানে সিরামিক বা মেটালের কোন গ্লাস ব্যবহার করা হলে সাউন্ড আরো বেশি হবে।

তথ্যসূত্র: http://banglamail24.com/

জিমেইলের ৮ টিপস
নানাবিধ সুবিধার কারণে ইমেইল ব্যবহারকারীদের কাছে জনপ্রিয় জিমেইল। তবে জিমেইল ব্যবহার করলেও অনেকেই জানেন না এর বিভিন্ন ফিচার। জেনে নিন জিমেইলের কিছু ফিচার।

    • অ্যাটাচ করতে ভুলে গেলে: জিমেইলের স্ট্যান্ডার্ড ভার্সনে কাউকে মেইল করার সময় ‘I have attached’ বা এ রকম কোনো শব্দ ব্যবহার করার পর যদি অ্যাটাচ করতে ভুলে যান, তবে সেন্ড বাটনে ক্লিক করলেও আপনার মেইলটি যাবে না। এর বদলে দেখাবে একটি মেসেজ। যার অর্থ দাঁড়ায়, ‘আপনি মেইল লিখেছেন অ্যাটাচমেন্ট করেছেন, কিন্তু মেইলে কোনো অ্যাটাচমেন্ট নেই। আপনি কী এরপরও মেলটি পাঠাতে চান?।’
    • রঙিন স্টার: গুরুত্বপূর্ণ ইমেইল আলাদা করতে জিমেইলে রয়েছে স্টার চিহ্ন ব্যবহারের সুযোগ। জিমেইলের ইনবক্সের হোমপেজে প্রতিটি ইমেইলের পাশে একটি করে অনুজ্জ্বল স্টার চিহ্ন দেখা যায়। আপনি যদি কোনো মেইলকে গুরুত্বপূর্ণের তালিকায় রাখতে চান তবে সেই স্টারে ক্লিক করুন। সাদা রংয়ের স্টার তখন হলুদ রং ধারণ করবে। আপনি চাইলে হলুদ রংয়ের পরিবর্তে বিভিন্ন রংয়ের স্টার ব্যবহার করতে পারেন। এজন্য প্রোফাইল ছবির নিচে থাকা সেটিংস কমান্ড থেকে ইন-ইউস এবং নট ইন-ইউস থেকে রঙ বাছাই করতে পারবেন। এখান থেকে একটি, দুটি বা চারটি বিভিন্ন রংয়ের স্টার ব্যবহার করতে পারেন। প্রয়োজন অনুযায়ী মেইলগুলো আলাদা রঙয়ের স্টার ব্যবহার করে রাখতে পারেন। সেটিংসে রঙ নির্বাচন করার পরে সেভ ক্লিক করুন। এরপর প্রথমবার স্টারে ক্লিক করলে হলুদ দেখা যাবে। দ্বিতীয়বার ক্লিক করলে রঙ পরিবর্তন হতে থাকবে।
    • ছদ্মনামে একাধিক ইমেইল: আপনি যদি ইমেইল অ্যাড্রেসে একাধিক ছদ্মনাম ব্যবহার করতে চান, তবে ঠিকানার মাঝখানে একটা ডট বসিয়ে দিন। এরপরও আপনার মেইল আসবে। যদি আরো ছদ্মনাম ব্যবহার করতে চান, তবে প্রথম অক্ষরের পর একটি ডট দিয়ে বাকিটুকু আগের মতো বসিয়ে দিন। এটা হতে পারে এমন- nilotpalbiswas09@gmail.com>nilotpal.itbd@gmail.com>n.i.dhinitbd@gmail.com। আপনি চাইলে বিভিন্ন ওয়েবসাইটের সেবা গ্রহণ করার সময় বা নিউজলেটার সাবসক্রিপশন করার সময় ছন্দনামে ইমেইল আইডি ব্যবহার করতে পারেন।
    • করণীয় তালিকা: আপনার টু-ডু লিস্ট বা করণীয় তালিকা যুক্ত করতে পারেন জিমেইলে। অফিস কিংবা ব্যবসায়িক প্রয়োজনে এ ফিচারটি ব্যবহার করা সম্ভব। আগামি দিনের সম্ভাব্য কাজের তালিকা ইমেইলে যুক্ত করতে ও সার্কেলের সদস্যদের কাছে পাঠানোর জন্য জিমেইলের হোম পেজে গুগল লোগোর নিচে জিমেইলে ক্লিক করলে একটি পপআপ স্ক্রিন দেখা যাবে। সেখান থেকে টাস্ক নির্বাচন করুন। এবার এতে যুক্ত করুন দিনের বা সপ্তাহের কাজের তালিকা। এ তালিকাটি সার্কেলে বা কাউকে মেইল করে পাঠাতে পারেন। টাস্ক তৈরি হলে অ্যাকশনস-এ ক্লিক করে তা প্রিন্ট, ইমেইল করতে পারেন। এ ছাড়া কাজের তালিকা হালনাগাদ করা ও ফাইলের নাম পরিবর্তনের সুবিধা থাকছে এতে।
    • কিবোর্ড শর্টকাট: জিমেইলে কিবোর্ডের জন্য কিছু প্রয়োজনীয় শর্টকাট কি আছে। এতে মাউস ছাড়াই জিমেইল ব্যবহার করা যাবে। এ রকম কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ শর্টকাট কি হচ্ছে- মেসেজ পাঠাতে Ctrl+Enter, নতুন উইন্ডো চালু করতে Ctrl+, কাউকে মেইল কার্বন কপি (সিসি) পাঠাতে Ctrl+Shift+c, কাউকে মেইল ব্লাইন্ড কার্বন কপি (বিসিসি) পাঠাতে Ctrl+Shift+b। তবে মনে রাখবেন, কম্পোজে ক্লিক করার পরই কেবল এই শর্টকাটগুলো কাজ করবে।
    • অ্যাডভান্সড শর্টকাট: ইমেইল ব্যবহারকারীদের দরকারি প্রয়োজন মেটাতে রয়েছে অ্যাডভান্সড শর্টকাট মেন্যু। এটি চালু করতে জিমেইলের ডান পাশে সেটিংসে গিয়ে কিবোর্ড শর্টকাট সক্রিয় করে দিন। কিবোর্ড শর্টকাট চালুর পর আপনি সেবাগুলো পাবেন। নতুন মেসেজ লিখতে কিবোর্ডে ‘পি’ বাটন চাপুন। নতুন ট্যাবে মেসেজ লিখতে কিবোর্ডে ‘এফ’ বাটন চাপুন। জিমেইলের সার্চ বক্সে কোন তথ্য খুঁজতে কিবোর্ডে ‘/’ বাটন চাপুন। কোনো মেসেজের রিপ্লাই দিতে কিবোর্ডে ‘টি’ বাটন চাপুন। চ্যাটিংয়ের তথ্য মুছে ফেলতে কিবোর্ডে ‘#’ বাটন চাপুন।
    • এক ব্রাউজারেই দুইটি ভিন্ন ইমেইল: আপনি যদি দুইটি জিমেইল অ্যাকাউন্ট ব্যবহার করেন, তবে একই ব্রাউজারে আপনি দুইটি ইমেইল চালু করতে পারেন। একসঙ্গে দুইটি জিমেল অ্যাকাউন্ট সক্রিয় করতে জিমেইলের ওপরে ডান পাশে আপনার ইমেইল অ্যাড্রেসে ক্লিক করে Add Account নির্বাচন করুন। এতে নতুন একটি ট্যাব ওপেন হবে। এবার এখানে আপনার অন্য জিমেইলের আইডি ও পাসওয়ার্ড বসিয়ে একসঙ্গে দুটি অ্যাকাউন্ট চালু করতে পারেন।
  • ধীরগতির ইন্টারনেট: ধীরগতির ইন্টারনেট সংযোগ হলে জিমেইল চালু হতে লম্বা সময় লাগতে পারে। এ সমস্যা সমাধানে আপনি যদি switch to a basic version নির্বাচন করেন তবে দ্রুত পেজ আপলোড হবে। সার্চ বক্সে https://mail.google.com/mail/?ui=html লিখে সার্চ করলে বেসিক ভার্সনে জিমেইল দ্রুত চালু হবে।

– মনিরুল হক ফিরোজ

জেনে নিন কম্পিউটার ভাল রাখার টিপস
প্রতিদিন ক্রমে ক্রমেই কম্পিউটার ব্যাবহার বাড়ছে । আমাদের দৈনন্দিন জীবনের প্রায় সবকিছুই এখন কম্পিউটার নির্ভর হয়ে যাচ্ছে । কম্পিউটারের উপর নির্ভরশীল হওয়াতে কম্পিউটার সবসময় ভাল থাকা চাই । আর কম্পিউটার ভাল রাখতে চাইলে আপনাকে কিছু কাজ করতে হবে । নিচে কম্পিউটার ভাল রাখার কিছু টিপস দেয়া হলো। আশা করি যারা বিষয়গুলো জানেন না তারা উপকৃত হবেন ।

১। অপ্রয়জনীয় সফটওয়্যার ইনস্টল করা থেকে বিরত থাকুন।
২। কাজ শেষ হয়ে গেলে যে সব সফটঅয়্যার আপাতত আর কাজে লাগবে না, সেগুলি আনইনস্টল করুন।
৩। সপ্তাহে অন্তত একবার ডিক্স ডিফ্রাগমেন্ট করুন।
৪। রিলায়েবল একটি আপডেটেড অ্যান্টিভাইরাস ইউজ করুন, একাধিক এন্টিভাইরাস ইনস্টল করবেন না, পিসিকে স্লো করে দেবে।
৫। কিছু কমান্ড এর মাধ্যমে কম্পিঊটার পরিস্কার রাখতে পারেন যেমন-Start Menu ক্লিক করে Run ক্লিক করুন লিখুন %Temp% এরপর Ok-তে ক্লিক করুন, দেখবেন অনেক File এসেছে এগুলি ডিলিট করুন। এতে পিসির সিস্টেম ড্রাইভের জায়গা বাড়বে।
৬। আবার Start Menu ক্লিক করে Run ক্লিক করুন লিখুন Temp এরপর Ok-তে ক্লিক করুন, দেখবেন অনেক File এসেছে এগুলি ডিলিট করুন।
৭। আবার Start Menu ক্লিক করে Run ক্লিক করুন লিখুন Prefetch এরপর Ok-তে ক্লিক করুন, দেখবেন অনেক File এসেছে এগুলি ডিলিট করুন।
৮। আবার Start Menu ক্লিক করে Run ক্লিক করুন লিখুন Recent এরপর Ok-তে ক্লিক করুন, দেখবেন অনেক File এসেছে এগুলি ডিলিট করুন।
৯। মাঝে মাঝে Hard Disk চেক করার জন্য Start Menu ক্লিক করে Run ক্লিক করুন লিখুন chkdsk এরপর Ok-তে ক্লিক করুন, দেখবেন Hard Disk চেক হচ্ছে।
১০। প্রত্যেক ড্রাইভে মিনিমাম ১৫% জায়গা খালি রাখুন, এতে পিসির স্পিড বাড়বে।
১১। পিসিতে ডিক্স/পেন ড্রাইভ যাই add করুন না কেন, অবশ্যই ওপেন করার আগে ভালো এন্টিভাইরাস দিয়ে চেক করে নেবেন।

সফটওয়্যার ও টাকা ছাড়াই বিরক্তিকর কলারকে ব্লক করুন!
অনেক সময় আমাদের মোবাইল ফোনে বিরক্তিকর কল আসে সেটা বন্ধ করতে আমরা বেছে নেই Call Block Service। সেজন্য অপারেটররা প্রতি মাসে একটি নির্দিষ্ট পরিমান টাকা কেটে নেয়। এমনকি অনেকে বিভিন্ন প্রকার Call block সফটওয়্যারও আমরা ব্যবহার করি। এসব ঝমেলায় না গিয়ে একটি সহজ টিপস জেনে নিন। এই টিপস জিপি, রবি, বাংলালিংক ও এয়ারটেল এর গ্রাহকদের জন্য প্রযোজ্য।

প্রথমে আপনার মোবাইল এর CallDivert Option এ যান (Voice Call)। এরপর সেখান থেকে Divert When Busy/If busy তে চাপুন এবং Active চাপুন। তারপর To Other Number এ  GP এর জন্য 1266, Robi এর জন্য 8121, Banglalink এর জন্য 770 এবং Airtel এর জন্য 789 চাপুন।

ফলাফলঃ
এখন থেকে যে কলারই আপনাকেকল করুক না কেন আপনি শুধু Call টা কেটে দিন। যে আপনাকে Call করছে তার ১২টা বাজতে শুধু করছে। অর্থাৎ তার মোবাইলএ Call টা রিসিভ হয়েগেছে। ভয় নেই আপনার টাকা কাটবে না।

Removable Device এ “Auto Play” বন্ধ করুন
আমরা Computer/Laptop এ Pen drive, Card Reader লাগানোর সাথে সাথে তা সাধারণথ Auto play হয়ে যায়। কিন্তু খুব সহজেই ইচ্ছা করলে আমরা এই Auto Play বন্ধ করে দিতে পারি। এতে CD/DVD ও Auto Play হবে না। এজন্য Start > Run এ গিয়ে type করুন gpedit.msc এরপর Enter দিন। নতুন একটি Window আসবে তাতে > GroupPolicy> Computer Configuration > Admin istrative Templates > System Commend > Turn Off Auto Play (Double Click)। একটি নতুন window আসবে enable করে All drive নির্বাচন করে apply করুন।

মাই কম্পিউটারের গতি বাড়ান
অনেক সময় কম্পিউটারের গতি কমে যায়, যার ফলে My computer খুলতে দেরি হয়। এ রকম হলে Start > Run-এ গিয়ে regedit লিখে Enter চাপুন। এখন HKEY_CURRENT_USER\ Control Panel\Desktop অপশনে যান। বা পাশের MenuShowDelay অপশনে  ডাবল-ক্লিক করুন এবং ডান ক্লিক দিয়ে modify অপশনে যান। এখন Value data হিসেবে 100 লিখে ok করে বের হয়ে আসুন। এরপর থেকে My computer খুলবে দ্রুত।
Task Manager ছাড়াই এক ক্লিকে হ্যাং হয়ে যাওয়া প্রোগ্রাম বন্ধ করুন
উইন্ডোজ অপারেটিং সিস্টেম এর বিভিন্ন বিরক্তিকর সমস্যাগুলোর মধ্যে একটি হল প্রোগ্রাম রেসপন্স না করা অর্থাৎ হ্যাং হয়ে যাওয়া। র‌্যাম এর স্বল্পতা, ভাইরাস, নিম্নমানের প্রোগ্রাম ডিজাইন ইত্যাদি বিভিন্ন কারনে এই সমস্যা হতে পারে। যখন কোন সফটওয়্যার হ্যাং হয়ে যায় তখন আমরা সাধারনত Alt+Ctrl+Del চেপে টাস্ক ম্যানেজার ওপেন করে সেই সফটওয়্যার বন্ধ করে থাকি। তবে কিছু কিছু ক্ষেত্রে টাস্ক ম্যানেজার খুলতেও যথেস্ট সময় লাগে, কারন এটি শুধু সেই হ্যাং হয়ে যাওয়া প্রোগ্রাম নয় বরং আরও অনেক কিছু নিয়ে লোড হয়। আর তাই টাস্ক ম্যানেজার ওপেন না করে এক ক্লিকে হ্যাং হয়ে যাওয়া প্রোগ্রাম বন্ধ করে দিলে কেমন হয় ? দেখা যাক এটি কিভাবে করা যায়।

    • প্রথমেই ডেস্কটপ এ রাইট ক্লিক করে New > Shortcut সিলেক্ট করুন।
    • এবার একটি ডায়ালগ বক্স দেখা যাবে যেখানে আপনার শর্টকাট এর লোকেশন জানতে চাইবে। সেখানে taskkill.exe /f /fi “status eq not responding” লেখাটি কপি করে পেস্ট করে নেক্সট বাটনে ক্লিক করুন।
  • শর্টকাটটির পছন্দমত একটি নাম দিন এবং ফিনিশ বাটনে ক্লিক করুন।

ব্যাস কাজ শেষ। এখন কোন প্রোগ্রাম হ্যাং হয়ে গেলে শুধু এই শর্টকাটে ডাবল ক্লিক করলেই সেই প্রোগ্রামটি বন্ধ হয়ে যাবে। টাস্ক ম্যানেজার ওপেন করার আর কোন ঝামেলা থাকল না।

সফটওয়্যার ছাড়াই পেনড্রইভে কপি-পেস্টের গতি বৃদ্ধি করুন
আপনি ইচ্ছে করলে সফটওয়্যার ছাড়াই পেনড্রইভে কপি-পেস্টের প্রক্রিয়া দ্রুততর করতে পারেন। এ জন্য প্রথমে My Computer-এ ডানে ক্লিক করে Properties অপশনে যান। এখন Hardware ট্যাব থেকে Device Manager অপশনে যান। এরপর Ports (Com & LPT) থেকে Communications port (COM1) অপশনে দুই ক্লিক দিন। এখন Port Settings থেকে Bits per second হিসেবে সর্বোচ্চ বিট 128000 নির্বাচন করুন। এরপর Flow Control অপশন থেকে hardware নির্বাচন করে OK দিন। এরপর পিসি রিস্টার্ট দিন। এখন পেনড্রাইভে কপি-পেস্ট প্রক্রিয়া আগের চেয়ে দ্রুততর হবে।
আপনার হাতের মোবাইল টি আসল কি না নকল কিংবা কোথায় তৈরী আপনি কি তা জানেন?
না জানলে এই টিপস  আপনার জন্য। অনেকে পুরাতন সেট কিনার সময়সেটের মান নিয়ে দ্বিধাদ্বন্দ্বে থাকেন। আপনি চাইলে এ সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে পারেন একটিকোডের মাধ্যমে। IMEI নাম্বার সম্পর্কে আমরা অনেকেই জানি। আর IMEI নাম্বার টা পেতে আপনাকে *#০৬# চাপতে হবে। তারপর ১৫ সংখ্যার একটি নাম্বার আসবে। আর ওইটাই হচ্ছে আপনার মোবাইলের IMEI নাম্বার। এবার আপনি সংখ্যাটির ৭ ও ৮ নং ঘরের দিকে লক্ষ্য করুন।

    • সংখ্যা দুটো যদি ০২ বা ২০ হয় তাহলেসেটের কোয়ালিটি খুব খারাপ ।
    • যদি০১ বা ১০ হয় তাহলে সেটের মান খুব ভাল ।
    • যদি ০০হয় তাহলে সেটটি কারখানায় তৈরী ।
    • যদি ১৩ হয় তাহলে সেটের মান খুব খারাপ -এবংসেটি স্বাস্থ্যেরজন্য ক্ষতিকর ।
  • আর যদি ০৮বা ৮০ হয় তাহলে সেট টি মানস্মত।

এবার তাহলে জেনে নেই আপনার মোবাইল টা কোন দেশের তৈরি!
নাম্বার দুইটা যদি ১০,৭০,৯১ বা ০১,০৭,১৯ হয়তাহলে বুঝবেন এটা ফিনল্যান্ডের তৈরি।

    • ০২ বা ২০ হলে বুঝবেন এটা জার্মানি বাআরব আমিরাতের।
    • ৩০ বা ০৩ হলে কোরিয়ার।
    • ৪০ বা ০৪ হলে চায়নার।
    • ৫০ বা ০৫ হলে ব্রাজিল বা যুক্তরাষ্ট্রের।
    • ৬০ বা ০৬ হলে হংকং বা ম্যাক্সিকোর।
    • ৮০ বা ০৮ হলে হাঙ্গেরি।
  • ১৩ বা ৩১ হলে এটি আজারবাইজানের তৈরি।

কী-বোর্ডের ফাংশন কী সমূহের কাজ
কী বোর্ডের উপরের অংশে অবস্থিত F1 থেকে F12 পর্যন্ত কী গুলো হচ্ছে ফাংশন কী। প্রত্যেকটি ফাংশন কী আলাদা আলাদা কাজ করে থাকে।

    • F1 এর কাজ- F1 ফাংশন কী’র মাধ্যমে Running (বর্তমান) স্ক্রীনের হেলপ ফাইল অপেন হবে।
    • F2 এর কাজ- F2 এর মাধ্যমে কোন ফোল্ডার অথবা ফাইল এর নাম রিনেম করার জন্য ব্যবহৃত হয়। উল্লেখ্য যে, যে ফাইল অথবা ফোল্ডারটি রিনেম করতে হবে সেটিকে আগে সিলেক্ট করে তারপর F2 চাপতে হবে।
    • F3 এর কাজ- F3 ফাংশন কী’র মাধ্যমে Running Program এর Search অপশন আনা যায়।
  • F4 এর কাজ- F4 এর মাধ্যমে Ms Word এর Last Action Performed আবার Repeat করা যায়। এ ছাড়াও Alt+F4 চেপে Running প্রোগ্রাম বন্ধ করা যায়।

পরিস্কার করে নিন আপনার পিসির RAM
RAM পরিস্কার করার জন্যে প্রথমে আপনাকে স্টার্ট মেনু থেকে Notepad/ wordpad ওপেন করতে হবে, সেখানে 512MB RAM এর জন্য FreeMem=Space(51200000), 1GB RAM এর জন্য FreeMem=Space(102400000),2GB RAM এর জন্য FreeMem=Space(204800000),4GB RAM এর জন্য FreeMem=Space(409600000) টাইপ করে MyRamClear.vbs নামে সেভ এস এর মাধ্যমে সেভ করতে হবে। উল্লেখ্য যে নাম যাই হোক এক্সটেনশন .vbs হতে হবে। এখন সেভ করা ফাইলটি ডাবল ক্লিক করুন, কিছুক্ষনের মধ্যেই আপনার র‌্যামটি পরিস্কার হয়ে গেছে। উল্লেখ্য যে, ডাবল ক্লিক করলে কিছুই দেখাবে না, কিন্তু র‌্যামটি পরিস্কার হয়ে যাবে।

ইন্টারনেট কানেকশন চেক করুন ping কমান্ডের মাধ্যমে
আপনার পিসির ইন্টারনেট কানেকশন চেক করুন ping কমান্ডের মাধ্যমে। ping কমান্ডের মাধ্যমে ইন্টারনেট কানেকশন চেক করার জন্য প্রথমে Run কমান্ডে গিয়ে ping 4.2.2.1 লিখে এন্টার দিন। আপানর পিসিতে ইন্টারনেট কানেকশন থাকলে Reply from 4.2.2.1 লিখাটি আসবে আর যদি ইন্টারনেট কানেকশন না থাকে অথবা সিগনাল দূর্বল হয় সেক্ষেত্রে Requested timed out লেখাটি আসবে। উক্ত সমস্যা সমাধানের জন্য মডেম অথবা ব্রডব্যান্ডের কানেকশন ঠিক ভাবে লাগানো আছে কিনা অথবা configuration ঠিক আছে কিনা তা যাচাই করে দেখতে হবে।

ব্রাউজ করুন যে কোন ব্লক করা ওয়েবসাইট
যদি কখনো কোন ওয়েব সাইট থার্ড পার্টি বন্ধ করে দেয় তবে সে সেক্ষেত্রে উক্ত সাইটটি আর ব্রাউজ করা যায় না, সেক্ষেত্রে প্রক্সিসার্ভার ব্যবহার করে উক্ত সাইটটি ব্রাউজ করা যাবে, নিচের ঠিকানা অনুযায়ী প্রক্সিসার্ভার সাইট ওপেন হলে নিচের http:// এই স্থানে আপনার কাঙ্খিত সাইটের নাম লিখে Start Browser এ ক্লিক করুন।
Proxy Server

প্রয়োজনীয় পণ্য ক্রয় করুন অনলাইনে!
তথ্যপ্রযুক্তির যুগে কেনাকাটাও হবে তথ্যপ্রযুক্তির মাধ্যমে! আমাদের দেশে বর্তমানে অনেক ই-কমার্স সাইট রয়েছে যেখান থেকে আমরা অনলাইনে পণ্য ক্রয় করতে পারি, উক্ত ই-কমার্স সাইটগুলোতে পেমেন্ট মেথড ও রয়েছে ভিন্ন ভিন্ন, যেমন: বিকাশ, মাস্টারকার্ড, ভিসাকার্ড, পেপাল ইত্যাদি। উক্ত সাইটগুলো থেকে পণ্য ক্রয় করলে ১ থেকে ৩ দিনের মধ্যে পৌছে দেয়া হয় ক্রেতার ঠিকানায়। আমাদেরর দেশীয় ই-কমার্স সাইটগুলোর মধ্যে কযেকটি জনপ্রিয় ই-কমার্স সাইটের ওয়েব এড্ড্রেস নিচে দেওয়া হল:

ইন্টারনেটে ইসলামিক জ্ঞানভান্ডার
ইন্টারনেটের মাধ্যমে আপনি এবং আপনার পরিবারকে ইসলামের আলোয় আলোকিত করার জন্য নিচে দেওয়া লিংকে ক্লিক করে পেজে ঢুকুন এবং পেজের ভিতরে লাইক বাটনে ক্লিক করুন।
শান্তির পথে

জেনে নিন Run কমান্ডের ব্যবহার
আজকে আমরা মাইক্রোসফট উইন্ডোজ Run এপ্লিকেশন সম্পর্কে জানব। উইন্ডোজের Run এপ্লিকেশন হচ্ছে এমন একটি প্রোগ্রাম যার মাধ্যমে কিছু কমান্ড ব্যবহার করে অনেক এপ্লিকেশন প্রোগ্রাম দ্রুত চালু করা যায়, ইনশাআল্লাহ, ধারাবাহিক ভাবে আমরা উক্ত প্রোগ্রামের কমান্ড সম্পর্কে জানব। উইন্ডোজের Run এপ্লিকেশন ব্যবহারের জন্য প্রথমে Start > Run অথবা Windowskey+R এ গিয়ে আপনার প্রয়োজনীয় কমান্ডটি টাইপ করে Ok বাটনে Click করুন।

প্রয়োজনীয় কিছু কমান্ডঃ

    • PC Configuration দেখার জন্য dxdiag
    • Temporary ফাইল মুছার জন্য temp
    • Recent হিস্টোরী দেখার জন্য recent
    • Calcculator ব্যবহার করার জন্য calc
    • Check Disk ব্যবহার করার জন্য chkdsk
    • Command Prompt দেখার জন্য cmd
    • Windows Keyboard এর জন্য osk
    • Disk Defragmentar এর জন্য defrag
    • Disk Partition Manager এর জন্য diskpart
    • Display Properties এর জন্য control desktop
    • Fonts Folder এর জন্য fonts
    • Font Control করার জন্য control Fonts
  • IP Configuration এর জন্য ipconfig

জেনে নিন কি-বোর্ডের শর্টকার্ট
কম্পিউটারে কাজ করার সময় কি-বোর্ড ব্যবহার করে খুব দ্রুত বিভিন্ন কাজ সম্পন্ন করা যায়। ধরুন,আপনি ওয়ার্ড এপ্লিকেশন ব্যবহার করছেন এবং একটি প্যারাগ্রাফ লিখেছেন, এখন আপনি যদি উক্ত প্যারাগ্রাফের ফন্ট বড় করতে চান তাহলে পুরো প্যারাগ্রাফটি সিলেক্ট করে ctrl+] চাপুন, ফন্ট বড় হতে থাকব এবং ctrl+[ চাপলে ফন্ট ছোট হতে থাকবে।

জেনে নিন আপনার পিসির ইন্টারনেট গতি
আমরা যারা আইটি প্রেমিক তাদের অনেকেই পিসিতে ইন্টারনেট ব্যবহার করে থাকি। কিন্তু আমরা অনেকেই আমাদের পিসির রিয়েল ইন্টারনেট গতি কত তা জানি না। আজকে আপনাদেরকে এমন একটি ওয়েব সাইটের ঠিকানা দিচ্ছি যার সাহায্যে আপনারা আপনাদের পিসির ইন্টারনেট গতি খুব সহজেই জানতে পারবেন।ইন্টারনেট স্পিড চেকার

প্রয়োজনীয় কিছু SEO আ্যানালাইসিস টুলস
ওয়েব সাইটে ভিজিটর বাড়ানোর জন্য SEO একটি গুরুত্বপূর্ন বিষয়, SEO এর পূর্নরুপ হচ্ছে সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন, একটি ওয়েব সাইটের ভাল SEO করার জন্য বিভিন্ন পদ্ধতিতে SEO করতে হয় এবং বিভিন্ন আ্যনালাইসিস টুলসের প্রয়োজন হয়। SEO করার জন্য যেসকল আ্যনালাসিস টুলসের প্রয়োজন হয় এমন কয়েকটি ওয়েব সাইটের এড্রেস নিচে দেওয়া হল:

বন্ধ করুন বিরক্তিকর এ্যারর ম্যাসেজ
আমরা যারা পিসি ব্যবহার করি সকলেই উইন্ডোজের এ্যারর ম্যাসেজের বিষয়ে অবহিত, কিছু কিছু এ্যারর ম্যাসেজ খুবই বিরক্তিকর। আজকে আমরা জানব, কিভাবে একটি এরর ম্যাসেজ বন্ধ করা যায় তার পদ্ধতি। পিসিতে যদি “There is no disk in the drive. Please insert a disk into drive” এ ম্যাসেজ বার বার আসতে থাকে তবে তা বন্ধ করার পদ্ধতি আজকের আয়োজন- এর জন্য Run > regedit > yes > HKEY_LOCAL_MACHINE > SYSTEM > CurrentControlSet > Control > Windows > ErrorMode > 2 ভ্যালু সেট করলেই উক্ত ম্যাসেজ আর দেখাবে না।

ইন্টারনেটে দেখুন ঝকঝকে বাংলা নিউজপেপার
আমরা যারা ইন্টারনেট ব্যবহার করি সকলেই কমবেশি বাংলা সাইট ব্রাউজ করে থাকি, কোন কোন ক্ষেত্রে দেখা যায় বাংলা অক্ষর গুলি সুন্দর ও ঝকঝকে হয়না, তাই অক্ষর গুলি সুন্দর ও ঝকঝকে দেখার জন্য আপনার পিসিতে পুরাতন Vrinda ফন্টটি ডিলিট করে এই Vrinda ফন্টটি ডাউনলোড করে Start > Run > Fonts এ গিয়ে পেস্ট করুন।

অনলাইনে ইসলামিক জ্ঞান ভান্ডার
তথ্য প্রযুক্তির যুগে জ্ঞান আহরোনের বিষয়টি চলে এসেছে হাতের মুঠোয়, আর তা যদি ইসলামিক তাহলে তো কোন কথাই নেই! হ্যাঁ আমি আজকে আপনাদেরকে একটি ইসলামিক ওয়েব সাইটের এড্ড্রেস দিব যেখান থেকে আপনি ইসলামের অনেক গুরুত্বপূর্ন বিষয়াদি জানতে পারবেন, শুনতে পারবেন খুব সুন্দর সুন্দর ইসলামিক আলোচনা।
এখানে ক্লিক করুন

জনপ্রিয় কয়েকটি মোবাইল অপারেটিং সিস্টেম
বর্তমান তথ্যপ্রযুক্তির যোগে অত্যাধুনিক মোবাইল ফোন বাজারজাত করছে বিভিন্ন নামি দামী প্রতিষ্ঠান এবং ব্যবহার করছে বিভিন্ন অপারেটিং সিস্টেম। বর্তমানে সবচেয়ে বেশি জনপ্রিয় অপারেটিং সিস্টেমের মধ্যে রয়েছে-

    • অ্যান্ড্রয়েড
    • সিম্বিয়ান
    • ব্ল্যাকবেরি
    • উইন্ডোজ (মোবাইল ভার্সন)
  • এ্যাপল আইওএস

সাবধান!!! ই-মেইলে কোটি টাকার লটারী বিজয়!!!
আমরা যারা কম্পিউটার ও ইন্টারনেটের সাথে জড়িত কমবেশি সকলেই ই-মেইল ব্যবহার করে থাকি। অনেক সময় দেখা যায় বিভিন্ন অপরিচিত উৎস থেকে ই-মেইল আসে যাতে অনেক লোভনীয় অফার থাকে অথবা কোটি টাকার লটারী বিজয়ের ঘোষনা থাকে, আপনাদের জ্ঞাতার্থে বলছি এগুলো সত্য নয়, সেক্ষেত্রে এধরনের ই-মেইল এড়িয়ে যাবেন কারন এগুলো আপনাকে যেকোন সময় জটিল ফাঁদে ফেলতে পারে। সম্প্রতি অনেকেই এধরনের প্রতারণার শিকার হয়েছেন।

উইকিপিডিয়া জিরো – জ্ঞান আহরণ বিনামূল্যে!
সকল জ্ঞানপিপাসুদের জন্য এল নতুন অফার!
কারণ গ্রামীণফোন দিচ্ছে বিনামূল্যে বিশ্বের সর্বাধিক ব্রাউজকৃত ওয়েবসাইটগুলোর মধ্যে দ্বিতীয় উইকিপিডিয়া ব্রাউজের সুযোগ!!

শর্তাবলী:
আপনি যদি কোনো ডাটা প্যাক ইউজার হয়ে থাকেন তবে http://zero.wikipedia.com লিংকে ব্রাউজ করলে কোনো ডাটা খরচ হবে না। PAYG ইউজার হলেও http://zero.wikipedia.com, লিংকে ব্রাউজ করলে মেইন একাউন্ট থেকে কোন খরচ হবে না। zero.wikipedia.com থেকে অন্য কোন লিংকে ব্রাউজ করলে ডাটা চার্জ প্রযোজ্য হবে। এই পেজ থেকে কোন ছবি ওপেন করলে (সাথে সাথেই ডাটা চার্জের একটি নোটিফিকেশন আসবে) ডাটা চার্জ প্রযোজ্য হবে।এই URL টি zero.wikipedia.com ব্লাকবেরি ও নোকিয়া আশা এস৪০ বাদে সকল হ্যান্ডসেটের অপেরা মিনি ব্রাউজার এ কাজ করবে।জিরো উইকিপিডিয়া ব্লাকবেরি ও নোকিয়া আশা এস৪০ বাদে সকল হ্যান্ডসেটে শুধুমাত্র অপেরা মিনি ব্রাউজার এ কাজ করবে।ওপেরা মিনি ব্রাউজার ছাড়া অন্য কোন ব্রাউজার ব্যবহার করলে zero.Wikipedia.com কাজ করবে না ও ডাটা চার্জ প্রযোজ্য হবে। কোন কোন স্মার্টফোনে শুধুমাত্র ব্যাকগ্রাউন্ড এ কোনো অ্যাপ্লিকেশন চালু থাকলে ডাটা চার্জ কাটতে পারে। তবে জিরো উইকিপিডিয়া ব্রাউজের জন্য কোন চার্জ করা হবে না। উইকিপিডিয়া জিরো থেকে ছবি ও ভিডিও দেখা যেতে পারে তবে তার জন্য স্বাভাবিক নিয়মে ডাটা চার্জ প্রযোজ্য। উইকিপিডিয়া জিরো হচ্ছে উইকিপিডিয়ার একটি টেক্সট-অনলি মোবাইল সাইট m.wikipedia.com যা থেকে ছবি বা ভিডিও দেখা বা অন্য কোনো ইউআরএল এ ক্লিক করলে ডাটা চার্জ প্রযোজ্য হবে।

আপনার পিসির ফোল্ডার ও ফাইল এর নাম লিখুন বাংলায়
আপনার পিসির ফোল্ডারের নাম বাংলায় লিখার জন্য প্রথমেই আপনাকে ফোল্ডার টি সিলেক্ট করতে হবে এবং মাউসের ডান বাটনে Click করে সেখানে থেকে Rename এ Click করে ইউনিকোডে ফোল্ডারের নাম লিখলেই তা বাংলায় প্রদশর্ন করবে। ফাইলের নাম বাংলায় লিখার ক্ষেত্রেও একই পদ্ধতি অনুসরন করুন।

জেনে নিন বিশ্বস্ত কয়েকটি ফ্রিল্যান্সিং সাইটের ঠিকানা
আমরা আউটসোর্সিং এর সাথে কম বেশি সবাই পরিচিত। আউটসোর্সিং এর রয়েছে অনেক প্রতিষ্ঠান, তবে সব প্রতিষ্ঠানই বিশ্বস্ত নয়। নিচে কয়েকটি জনপ্রিয় ও বিশ্বস্ত আউটসোর্সিং মার্কেট প্লেসের নাম লিংকসহ দেয়া হলঃ

জেনে নিন আপনার বন্ধ থাকা সিমের নাম্বার
বর্তমান যুগে আমরা সিমের সাথে কম বেশি সবাই পরিচিত। আমাদের কারো কারো একাধিক সিম আছে যার মধ্যে হয়ত কিছু বন্ধ সিম ও রয়েছে। আপনার বন্ধ সিমের নাম্বার জানার জন্য নিচের পদ্ধতি অনুসরন করুন:

    • Airtel (Warid) – *121*6*3#
    • GrameenPhone – *2#
    • Banglalink – *511#
  • Robi (Aktel) – *140*2*4#

বাড়িয়ে নিন আপনার পিসির গতি
কম্পিউটারের বিভিন্ন প্রোগ্রাম ব্যবহার করার সময় Temp নামক ফোল্ডারে কতগুলি ফাইল জমা হয় যার ফলে কম্পিউটার গতি কিছুটা কমে যায়, উক্ত ফাইলগুলি মুছে ফেলে কম্পিউটারের গতি বাড়ানো যায়। Temp ফাইল মুছার জন্য কীবোর্ড থেকে Windows+R কী চাপুন, Run প্রোগ্রাম অপেন হবে, সেখানে Temp টাইপ করে Ok বাটনে ক্লিক করুন, অনেকগুলি ফাইল দেখতে পাবেন সেগুলো ctrl+A দিয়ে সিলেক্ট করে Delete করুন, এবার পিসি রিস্টার্ট দিন।